শেয়ার বাজার থেকে প্রতিদিন ₹1000 কীভাবে আয় করবেন

স্টক বাজার আসা প্রত্যেক ব্যক্তি ভাল আয় করার ইচ্ছায় আসেন। স্টক বাজার হল টাকা তৈরির সবচেয়ে লাভজনক উপায়, কারণ এটি অন্যান্য উপায়ের তুলনায় ভাল রিটার্ন প্রদান করে। শেয়ার বাজারে আসা বেশিরভাগ মানুষ জিজ্ঞাসা করেন – শেয়ার বাজার থেকে প্রতিদিন ₹1000 কীভাবে আয় করা যায়? কিন্তু, তাদের মধ্যে অনেকেই জ্ঞান এবং অভিজ্ঞতার অভাবে তা করতে পারেন না।

শেয়ার বাজারের গতিবিধি বিভিন্ন বিষয় দ্বারা পরিচালিত হয় যা আন্তর্দেশীয় এবং আন্তর্জাতিক। এই কারণগুলি পরিস্থিতিগত, কারও নিয়ন্ত্রণে নয়। যেহেতু বাজারের দৈনিক গতিবিধির পূর্বাভাস দেওয়া কঠিন, তাই অভিজ্ঞ ব্যবসায়ীরা নির্দিষ্ট দৈনিক লক্ষ্যে পৌঁছানোর পরিবর্তে এক মাসে একটি নির্দিষ্ট পরিমাণ আয় করার লক্ষ্য রাখেন। প্রতিটি দিন ব্যবসার জন্য সুযোগ প্রদান করে না, এবং যদি আপনি প্রতিদিন ব্যবসা করে শেয়ার বাজার থেকে উপার্জন করেন, তাহলে এর কারণে আপনার অনেক ক্ষতি হতে পারে। আপনি যদি এখনও দৈনিক ব্যবসা করতে চান, তাহলে আপনাকে কাগজেকলমে বা ভার্চুয়াল ব্যবসা করতে হবে, এবং যদি আপনি এতে সফল হন, তাহলেই আপনি আসল ব্যবসা করতে পারেন।

ইন্ট্রাডে ট্রেডিং

বিনিয়োগের কোনও সীমা নেই। আপনি 1000 দিয়ে বা 1,00,000 দিয়ে শুরু করতে পারেন। মূলধনেরও কোনও সীমা নেই। যেহেতু দুটোর কোনটাতেই কোনও সীমা নেই, তাই উপার্জনের ক্ষেত্রেও কোনও সীমা নেই।, তাত্ত্বিকভাবে, শেয়ার বাজার থেকে একজন যে পরিমাণ টাকা রোজগার করতে পারে তা অপরিমিত।

শেয়ার বাজার থেকে প্রতিদিন 1,000 কীভাবে আয় করবেন?

যদি আপনি প্রতিদিন টাকা রোজগার করতে চান, তাহলে আপনাকে ইন্ট্রাডে ট্রেডিং –এ যোগ দিতে হবে। ইন্ট্রাডে ট্রেডিং –এ আপনি একদিনের মধ্যেই স্টক কিনবেন এবং সেদিনই বিক্রি করবেন। স্টকগুলি বিনিয়োগের একটি ধরণ হিসাবে ক্রয় করা হয় না, কিন্তু স্টকের মূল্যের ওঠানামার ব্যবহার করে মুনাফা করার একটি উপায় হিসাবে ক্রয় করা হয়।

শেয়ার বাজার থেকে প্রতিদিন 1,000 উপার্জন করার নিয়মগুলি কী?

যদি আপনি ভাবছেন যে শেয়ার বাজার থেকে প্রতিদিন ₹1000 আয় করবেন, তাহলে নিচে যে কৌশল দেওয়া হয়েছে তা অনুসরণ করে আপনি স্টক থেকে সহজে টাকা আয় করতে পারেন।

নিয়ম 1: বেশি সংখ্যক (হাই ভলিউম) শেয়ারে ব্যবসা করুন

এটি ইন্ট্রাডে ট্রেডিং –এর প্রথম নিয়ম – সবসময় বেশি সংখ্যক (হাই ভলিউম) বা লিকুইড শেয়ার আছে এমন শেয়ারের উপর নজর রাখুন। ‘ভলিউম’ শব্দটি এমন শেয়ারের সংখ্যা বোঝায় যা একদিনে এক হাত থেকে অন্য হাতে যায়। যেহেতু ব্যবসার সময় শেষ হওয়ার আগে পজিশনটি বন্ধ করতে হয়, তাই স্টকের লিকুইডিটি হলো সেটাই যা লাভের সম্ভাবনার উপর নির্ভর করে।

আপনি সর্বদা সময় নিয়ে যে স্টকে বিনিয়োগ করার পরিকল্পনা করেছেন তা নিশ্চিত করুন। আগে নিজের বিশ্লেষণ ও মতামত তৈরি করার পর তবেই অন্যদের বিশ্লেষণ এবং মতামত গ্রহণ করা উচিৎ। যদি আপনি কোনও নির্দিষ্ট স্টক বা ইন্ডাইসের ব্যাপারে আত্মবিশ্বাস অনুভব করেন, তাহলেই শুধুমাত্র সেগুলিতে বিনিয়োগ করা উচিত। আপনি যে 8 থেকে 10 শেয়ারের টার্গেট করতে চান তার একটি তালিকা তৈরি করুন এবং এই বিষয়ে আপনার গবেষণা শুরু করুন। বিনিয়োগ করার আগে, এই শেয়ারের মূল্য কীভাবে ওঠানামা করছে, তার দিকে ঘনিষ্ঠ মনোযোগ দিন।

নিয়ম 2: আপনার লোভ ও ভয়কে পিছনে ছেড়ে দিন

স্টক বাজারে, দুটি মৌলিক ভুল রয়েছে যা আপনাকে যেকোনোও মুল্যে এড়িয়ে যাওয়ার চেষ্টা করতে হবে। যে সিদ্ধান্ত ব্যবসায়ীরা গ্রহণ করেন তার উপর লোভ ও ভয়ের মতো কারণগুলি প্রায়শই প্রভাব ফেলে। যদি আপনি ব্যবসার সিদ্ধান্ত নেওয়ার সময় এই মানসিক কারণগুলি নিয়ন্ত্রণ করতে পারেন তাহলে সবচেয়ে ভালো হয়। কারণ, এগুলি কখনও কখনও ব্যবসায়ীরা ক্ষমতার বাইরে চলে যাওয়ার পরিস্থিতি তৈরি হয়, যা কখনই পরামর্শযোগ্য নয়। কিছু স্টক এবং শুধুমাত্র তাদের সাথে সম্পর্কিত পজিশন বিষয়ে সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত করা গুরুত্বপূর্ণ। কোনও ব্যবসায়ী প্রতিদিন লাভ করতে পারেন না। যদি আপনি সেই মরীচিকার পিছনে ছোটার চেষ্টা করেন, তাহলে বারংবার আপনি নিজেকে নিরাশই করবেন। যখন হাওয়া আপনার বিরুদ্ধে, তখন একটি ক্ষতি মেনে নেওয়া ছাড়া আর কোনও উপায় নেই। সুতরাং, একজন ইন্ট্রাডে ট্রেডার হিসাবে, আপনাকে সবসময় সীমার উপর নজর রাখতে হবে এবং তার মধ্যেই থাকার চেষ্টা করতে হবে।

নিয়ম 3: আপনার প্রবেশ এবং প্রস্থান বিন্দু নির্দিষ্ট রাখুন

দুটি কারণ, যার দ্বারা আপনার সিদ্ধান্ত কখনও প্রভাবিত হতে দেওয়া উচিত নয়, তা নিয়ে আলোচনার পর এবার দুটি কারণ, যা আপনার ভালো লাভ করার সম্ভাবনাকে বাড়াবে তা নিয়ে কথা বলা যাক। জেনে রাখুন, “শেয়ার বাজার থেকে প্রতিদিন ₹1000 কিভাবে আয় করা যায়?” এই প্রশ্নের উত্তর নিহিত রয়েছে ব্যবসায় প্রবেশ ও প্রস্থানের বিন্দু নির্দিষ্ট করার মধ্যে। এগুলি স্টক বাজারের দুটি প্রধান স্তম্ভ। একজন ব্যবসায়ী হিসাবে, আপনাকে এই বিন্দুগুলি সঠিকভাবে চিহ্নিত করতে হবে। এটি করার পর তবেই আপনি মুনাফা করার কথা ভাবতে পারেন।

কেনার আগে, সবসময় প্রবেশ বিন্দু এবং স্টকের লক্ষ্য মূল্য নির্ধারণ করুন। লক্ষ্য মূল্য হল সেই মূল্য যা তার অতীত এবং প্রকল্পিত উপার্জনগুলি বিবেচনা করার পরে ন্যায্যভাবে ধার্য করা হয়। যদি স্টকটি তার লক্ষ্য মূল্যের নীচে চলে যায় তখনই এতে বিনিয়োগ করার জন্য একটি ভাল সময়, কারণ যখন স্টকটি আবার তার লক্ষ্য মূল্যে পৌঁছাবে বা তাকে ছাড়িয়ে যাবে, তখন আপনি লাভ করবেন। আপনার প্রবেশ এবং প্রস্থানের জন্য একটি নির্দিষ্ট বিন্দু রাখলে তা নিশ্চিত করবে যে আপনি মূল্য সামান্য বেড়ে যাওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই শেয়ারগুলি বিক্রি করবেন না। এই প্রবৃত্তির কারণে, স্টকের মূল্য আরও বেশি হলে আপনি বড় লাভ করার সুযোগ হারাতে পারেন। প্রবেশ এবং প্রস্থানের জন্য একটি নির্দিষ্ট বিন্দু রাখলে ভয় এবং লোভের থাবা থেকে বাঁচবেন যেহেতু এর ফলে পদ্ধতিগত অনিশ্চয়তা কিছুটা হলেও দূর হয়।

নিয়ম 4: একটি স্টপ-লস অর্ডার ব্যবহার করে আপনার ক্ষতি সীমাবদ্ধ করুন

ইন্ট্রাডে ট্রেডিং –এর সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ দিকগুলির মধ্যে একটি হল একটি স্টপ-লস। স্টপ-লস হল একজন বিনিয়োগকারীর ক্ষতি সীমাবদ্ধ করার জন্য তৈরি করা একটি পদ্ধতি। আপনি স্টপ-লস ব্যবহার করে আপনার ক্ষতির পরিমাণ কমাতে পারেন, তাই এই কৌশলটি আপনার বারবার ব্যবহার করা উচিত। বিশাল ক্ষতি এড়াতে চাইলে ইন্ট্রাডে ট্রেডারদের কঠোর ভাবে স্টপ-লস পদ্ধতি মেনে চলা উচিত।

আপনি যে স্টপ-লস নির্দিষ্ট করেছেন তা আপনার ঠিক করা লক্ষ্য মুল্যের সঙ্গে আনুপাতিক হওয়া উচিত। শুরুতে, আপনাকে 1% এ স্টপ-লস সেট করতে হবে। একটি উদাহরণ দিলে ব্যাপারটা বোঝা সহজ হবে। মনে করুন, আপনি কিছু কোম্পানির শেয়ার ₹1200 দিয়ে কিনেছেন এবং স্টপ-লস 1% রেখেছেন, যা হলো ₹12। কাজেই, যখনই দাম কমে ₹1,188 হবে, তখনই আপনি পজিশনটি বন্ধ করবেন, এর ফলে আরও ক্ষতি হওয়া প্রতিরোধ হবে। এটি আপনার ক্ষতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে সাহায্য করে, যাতে আপনার আর্থিক লক্ষ্য অর্জন করা সহজ হয়ে যায়। স্টপ-লস কীভাবে কাজ করে? স্টপ-লস এমনভাবে সেট করা হয় যে, যদি মূল্য নির্দিষ্ট করা সীমার নীচে চলে যায়, তাহলে ট্রিগার বন্ধ হয়ে যায় এবং স্টকগুলি স্বয়ংক্রিয়ভাবে বিক্রি হয়ে যায়। সুতরাং, আপনার সম্ভাব্য ক্ষতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে এটি একটি অত্যন্ত উপকারী পদ্ধতি।

নিয়ম 5: ট্রেন্ডটি অনুসরণ করুন

যখন আপনি ইন্ট্রাডে ট্রেডিং-এ অংশগ্রহণ করছেন, তখন ট্রেন্ডটি অনুসরণ করা হলো লাভ নিশ্চিত করার ক্ষেত্রে আপনার সবচেয়ে নিরাপদ বাজি। একদিনের মধ্যে ট্রেন্ড ঘুরে যাওয়ার সম্ভাবনা কতটা ? ট্রেন্ডের সম্ভাব্য ঘুরে দাঁড়ানোর উপর ভিত্তি করে বাণিজ্যের সিদ্ধান্ত নেওয়ার ফলে কখনও সখনও লাভ হতে পারে, কিন্তু, বেশিরভাগ ক্ষেত্রে নয়।

যদি আপনি ভাবছেন যে শেয়ার বাজার থেকে প্রতিদিন ₹1000 কীভাবে আয় করবেন, তাহলে আপনি এই নির্দেশিকাগুলি অনুসরণ করার চেষ্টা করতে পারেন-

  1. আপনি যে কয়েকটি স্টক টার্গেট করতে চান তা নির্বাচন করুন
  2. কোনও কিছু করার আগে, কমপক্ষে 15 দিনের জন্য এই স্টকের গতিবিধি খেয়াল করুন
  3. এই সময়ে, ভলিউম, ইন্ডিকেটর এবং অসিলেটরের উপর ভিত্তি করে বিভিন্ন উপায়ে স্টকগুলি বিশ্লেষণ করুন। কিছু সাধারণভাবে ব্যবহৃত সূচক হলো সুপারট্রেন্ড বা মুভিং অ্যাভারেজ। আপনি স্টোকাস্টিক্স, মুভিং অ্যাভারেজ কনভার্জেন্স ডাইভার্জেন্স বা এমএসিডি (MACD) এবং রিলেটিভ স্ট্রেন্থ ইন্ডেক্সের মতো অসিলেটরদের সাহায্য নিতে পারেন।
  4. যদি নিয়মিতভাবে বাজারের নির্দিষ্ট সময়ে আপনার টার্গেট করা স্টকগুলি অনুসরণ করেন তাহলে কয়েক দিনের মধ্যেই আপনার বেশ ভালো ধারণা তৈরি হয়ে যাবে। মূল্যের গতিবিধি বোঝার ব্যাপারে আপনি আরও দক্ষ হয়ে উঠবেন।
  5. আপনি যে সূচকগুলি ব্যবহার করেছেন তার উপর আর আপনার বিশ্লেষণের উপর ভিত্তি করে আপনি এখন আপনার প্রবেশ এবং প্রস্থান বিন্দু ঠিক করতে পারেন।
  6. বিনিয়োগ করার আগে আপনাকে স্টপ-লস এবং আপনার লক্ষ্যমাত্রা ঠিক করতে হবে।

ছোট ছোট লাভের একাধিক ব্যবসার মাধ্যমে শেয়ার বাজার থেকে প্রতিদিন ₹1000 কীভাবে আয় করা যায়?

এবার কীভাবে প্রতিদিন ₹1000 আয় করা যায় সেই বিষয়ে আলোচনা করার চেষ্টা করা যাক। দৈনিক ₹1000 টাকার লাভ হতে পারে এরকম ডে ট্রেডিং-এর বিকল্পগুলি দেখে নেওয়া যাক। প্রায় প্রতিটি ব্রোকারের কোম্পানি বর্তমান সময়ে মূলধনের উপর লাভ প্রদান করে। সুতরাং, বিনিয়োগকারীরা ছোট মূলধন দিয়ে বিনিয়োগ শুরু করতে পারেন। একটি কৌশল যা আপনার কঠোর ভাবে অনুসরণ করা উচিত তা হল একাধিক বাণিজ্য থেকে ছোট ছোট মুনাফা সংগ্রহ করা। সাধারণত, যথাযথ জ্ঞানের অভাব, খারাপ বাণিজ্যের সবচেয়ে বড় কারণ। ধরে নিন যে, আপনি ₹200 মূল্যের শেয়ার কিনেছেন এবং ₹204 বা ₹205 পর্যন্ত মূল্যের জন্য অপেক্ষা করছেন, তাহলে এটি কখনও একদিনের সম্ভব মধ্যে হবে না। একটি একক পদক্ষেপে 2% লাভ হবে বলে আশা করা অবাস্তব। যদি এই ধরনের লাভের জন্য অপেক্ষা করেন তবে আপনি টাকা হারাবেন। সুতরাং, একটি বড় লাভের জন্য অপেক্ষা করার পরিবর্তে অনেক ব্যবসা থেকে ছোট ছোট লাভ করার উপর লক্ষ্য স্থির করুন।

বাজারের সঙ্গে আপনার পদক্ষেপগুলি সিঙ্ক্রনাইজ করুন

যেকোনোও জীবিত প্রাণীর মতোই, কখনই 100% নিশ্চয়তার সঙ্গে বাজারের গতিবিধির পূর্বাভাস করা যায় না। এমন অনেক সময় হয় যখন সমস্ত প্রযুক্তিগত সূচক বুল মার্কেটের দিকে নির্দেশ করা সত্ত্বেও পতন ঘটে। কখনও কখনও সবকিছু ভালোর দিকে নির্দেশ করলেও তা কোনও বাস্তবে পরিণত হয় না। যদি দেখেন যে আপনি যেমন আশা করেছিলেন বাজারের গতিবিধি তার থেকে আলাদা, তাহলে সেদিনের মতন ওখানেই থেমে যান। আরও ক্ষতি প্রতিরোধ করার জন্য তখন বেরিয়ে যাওয়াই সবচেয়ে ভালো হবে।

স্টক থেকে পাওয়া রিটার্ন লাভজনক হতে পারে, কিন্তু উপরে উল্লিখিত টিপসগুলি অনুসরণ করে যদি প্রতিদিন একটি স্থির লাভ করা সম্ভব হয় তাহলে সেটা খুবই সন্তোষজনক। ইন্ট্রাডে ট্রেডিং আপনাকে আরও বেশি সুবিধা দেয়, যা আপনাকে একদিনে ভালো রিটার্ন দেয়। শেয়ার বাজার থেকে প্রতিদিন ₹1000 কীভাবে আয় করতে পারেন, এই প্রশ্নের উত্তর হিসেবে ইন্ট্রাডে ট্রেডিং আপনার জন্য সেরা বিকল্প হতে পারে। তৃপ্তির অনুভুতি পেতে চাইলে আপনাকে দীর্ঘ সময় ধরে ইন্ট্রাডে ট্রেডার হিসাবে কাজ করে যেতে হবে। ইক্যুইটি বাজারে লাভ এবং ক্ষতি একই মুদ্রার দুই পিঠ এবং একে অপরের সঙ্গে অবিচ্ছেদ্য ভাবে জড়িত। যদি আপনি মুনাফা করতে চান, তাহলে আপনাকে মাঝেসাঝে ক্ষতি বহন করতেই হবে। এটি শেয়ার বাজারের এবং ইন্ট্রাডে ট্রেডিং-এর একটি অঙ্গাঙ্গীভাবে জড়িত অংশ । কিন্তু, যদি আপনি যথেষ্ট সময় নিয়ে জ্ঞান এবং দক্ষতা অর্জন করে থাকেন তাহলে এতো কিছু সত্ত্বেও, স্টক বাজার থেকে একটি স্থির আয় উপার্জন করা সবসময় কঠিন নয়।